মঙ্গলবার, ২৩ Jul ২০২৪, ১২:০৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
পিএস সি দুর্নীতি মুক্ত মঞ্চের ডাকে, বিভিন্ন দাবী নিয়ে পি এস সি অফিস অভিযান ও ডেপুটেশন। যারা রাজাকারের পক্ষে শ্লোগানে নেতৃত্ব দিয়েছে তাদের বিরূদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকা, চট্টগ্রাম, বগুড়া ও রাজশাহীতে বিজিবি মোতায়েন নতুন সাক্ষাৎকারে মানসিক বিচক্ষনতার পরিচয় দিলেন বাইডেন আগামী ১৮ জুলাই সকল বোর্ডের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা স্থগিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় আগামীকাল পবিত্র আশুরা পবিত্র আশুরা সমগ্র মুসলিম উম্মা’র জন্য এক তাৎপর্যময় ও শোকের দিন : রাষ্ট্রপতি ঢাকায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে দুটি বাসে অগ্নিসংযোগ ৭ শিক্ষার্থী নিহতের দায় সরকার এড়াতে পারে না – লেবার পার্টি

গুলশানে পুলিশ সদস্য মনিরুলকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত কনস্টেবল কাউসার আটক

নিউজ দৈনিক ঢাকার কন্ঠ 

মনির হোসেন জীবন : রাজধানীর গুলশান থানার গুলশান – বারিধারা ডিপ্লোমেটিক জোন এলাকার ফিলিস্তিন দূতাবাসের সামনে কর্তব্য পালনকালে এলোপাতাড়ি গুলিতে পুলিশের এক সদস্য মনিরুল ইসলাম নিহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় জাপান দূতাবাসের গাড়িচালক সাজ্জাদ হোসেন সহআরেকজন বাইসাইকেল আরোহীও গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন।

সাজ্জাদের শরীরে তিনটি গুলি লেগেছে। তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নেয়া হয়েছে।

এদিকে, কনস্টেবল মনিরুল ইসলামকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় কাউসার ইসলাম ওরফে কাওসার আলী নামে অপর এক পুলিশ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে গুলশান থানা পুলিশ।

ঘটনার পর পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল-মামুন, ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমানসহ পুলিশ সদর দপ্তর ও ডিএমপির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্হল পরিদর্শন করেন।

গুলশান থানা পুলিশের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, এ ঘটনায় অভিযুক্ত কনস্টেবল কাউসার আহমেদকে আটক করেছে গুলশান থানা পুলিশ। তার ব্যবহৃত আগ্নেয়াস্ত্রটি জব্দ করা হয়েছে। কনস্টেবল কাউসারের গুলিতে কনস্টেবল মনিরুল ইসলাম ঘটনাস্থলেই মারা যান।

এদিকে, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) রিফাত রহমান শামীম ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, এ ঘটনার পর পুরো কূটনীতিক এলাকায় নিরাপত্তাব্যবস্থা আগের চেয়ে জোরদার করা হয়েছে। কাউসার আহমেদ কী কারণে মনিরুল ইসলামকে হত্যা করেছেন তা জানতে পুলিশ তদন্ত করছে।

শনিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে

গুলশান থানার গুলশান-বারিধারা কূটনীতিক এলাকায় ফিলিস্তিন দূতাবাসের সামনে নিহতের মরদেহ উদ্বার করে।

এর আগে রাত আনুমানিক ১১টা ৪৫ মিনিটের সময় কাউসার আহমেদেরব গুলিতে নিহত হন কনস্টেবল মো. মনিরুল। এ ঘটনার পর

আক্রমণকারী পুলিশ সদস্যকে নিরস্ত্র করে গুলশান থানায় নেওয়া হয়েছে। তাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচেছ।

ডিএমপির গুলশান থানা পুলিশ জানান, নিহত কনস্টেবলের মরদেহ উদ্ধার করে

সুরতহাল প্রস্তুতির পর ঢাকা শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে কিছু গুলির খোসা ও ২০ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন ডিএমপি পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এ ঘটনার পরপরই কূটনীতিক এলাকায় নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। পুরো এলাকা নিরাপত্তাবেষ্টনীতে ছেয়ে ফেলেছে পুলিশ। এ মুহূর্তে কেউ ভেতরে প্রবেশ করতে গেলে তাকে তল্লাশি করা হচ্ছে।

ঘটনাস্থলের আশপাশে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) ও সোয়াতসহ থানা পুলিশের একাধিক দল মোতায়েন রয়েছে।

জানা যায়, নিহত কনস্টেবল মনিরুল ইসলামের গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনা জেলায়। তিনি ২০১৮ সালে পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেন।

এ বিষয়ে ডিএমপি গুলশান থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাজহারুল ইসলাম জানান, গতরাত ১১টা ৪৫ মিনিটের দিকে গুলশানের ডিপ্লোম্যাটিক এলাকায় ফিলিস্তিন দূতাবাসের সামনে উত্তর পাশের গার্ডরুমে কনস্টেবল কাউসার আহমেদ গুলিতে অপর কনস্টেবল মনিরুল মারা গেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

দৈনিক ঢাকার কন্ঠ
© All rights reserved © 2012 ThemesBazar.Com
Design & Developed BY Hostitbd.Com