মঙ্গলবার, ২৩ Jul ২০২৪, ১২:২৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
পিএস সি দুর্নীতি মুক্ত মঞ্চের ডাকে, বিভিন্ন দাবী নিয়ে পি এস সি অফিস অভিযান ও ডেপুটেশন। যারা রাজাকারের পক্ষে শ্লোগানে নেতৃত্ব দিয়েছে তাদের বিরূদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকা, চট্টগ্রাম, বগুড়া ও রাজশাহীতে বিজিবি মোতায়েন নতুন সাক্ষাৎকারে মানসিক বিচক্ষনতার পরিচয় দিলেন বাইডেন আগামী ১৮ জুলাই সকল বোর্ডের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা স্থগিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় আগামীকাল পবিত্র আশুরা পবিত্র আশুরা সমগ্র মুসলিম উম্মা’র জন্য এক তাৎপর্যময় ও শোকের দিন : রাষ্ট্রপতি ঢাকায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে দুটি বাসে অগ্নিসংযোগ ৭ শিক্ষার্থী নিহতের দায় সরকার এড়াতে পারে না – লেবার পার্টি

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স জালিয়াতির অভিযোগে পল্টনে ২ ট্রাভেল ব্যাবসায়ী গ্রেফতার!

নিউজ দৈনিক ঢাকার কন্ঠ 

নিজস্ব প্রতিনিধি:

গত ২৪ জুন সমবার বিকেলে বিজয়নগর মাহতাব সেন্টারের ১৭ তলায় অবস্থিত কেএমএম ইন্টারন্যাশনাল নামক একটি ট্রাভেল এজেন্সির মালিক ও পরিচালককে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স, করোনা ভ্যাকসিন ও মেডিকেল সার্টিফিকেট জালিয়াতির অভিযোগে পল্টন থানা পুলিশ তাদের গ্রেফতার করেন। প্রতিষ্ঠানটির রিক্রুটিং লাইসেন্স নাম্বার ২২৭০।

মামলার এজহার সূত্রে জানা যায়, কেএমএম ইন্টারন্যাশনালের মালিক শাহজাহান কামাল ও পরিচালক মাহফুজুর রহমান ওরফে নাসিম ‘উত্তরা ইন্টারন্যাশনাল ক্যারিয়ার কাউন্সিল’ নামক আরেকটি ট্রাভেল প্রতিষ্ঠান থেকে মালোশিয়া, ইতালি, রোমানিয়া ও পর্তুগালে শ্রমিক ভিসায় লোক পাঠানোর জন্য ৮৪ টি পাসপোর্টের মেডিকেল ও পুলিশ ক্লিয়ারেন্স করেন। এর মধ্যে ৭২টি মালোশিয়ার মেডিকেল সার্টিফিকেট ও ৫টি পুলিশ ক্লিয়ারেন্স । এসব মেডিকেল সার্টিফিকেট ও পুলিশ ক্লিয়ারেন্স বাবদ প্রতিষ্ঠানটি থেকে কামাল ও নাসিম ৭ লাখ ৩৩ হাজার টাকা নেন।
এসব পুলিশ ক্লিয়ারেন্স ও মেডিকেল সার্টিফিকেট ভিসার জন্য বিভিন্ন এ্যাম্বাসিতে জমা দিলে তারা জানতে পারেন যে, এগুলো ভূয়া, জালিয়াতি করে করা হয়েছে। তারা পুলিশের ওয়েবসাইটের আদলে ওয়েবসাইট তৈরি করে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স জালিয়াতি করেছে বলে জানা যায়।
এ নিয়ে উত্তরা ইন্টারন্যাশনাল ক্যারিয়ার কাউন্সিল এর চেয়ারম্যান লাকি আক্তার বাদি হয়ে পল্টন থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ০২, তারিখ ০২/ ০৬/২০২৪।
এ বিষয়ে লাকি আক্তার প্রতিবেদককে জানান, কেএমএম ইন্টারন্যাশনাল এর মালিক ও পরিচালক তারা প্রতারক চক্র। অফিসে রিক্রুটিং লাইসেন্স ঝুলিয়ে মানুষের বিশ্বাস ও আস্থা অর্জন করে প্রতারণা করেন।

এবিষয়ে পল্টন থানার অফিসার ইনচার্জ মনির হোসেন মোল্লা এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, তারা পুলিশ ক্লিয়ারেন্স ও মেডিকেল সার্টিফিকেট জালিয়াতি করে মানুষের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিতো। তারা পল্টন থানায় ২ দিনের রিমান্ডে রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

দৈনিক ঢাকার কন্ঠ
© All rights reserved © 2012 ThemesBazar.Com
Design & Developed BY Hostitbd.Com